১৪ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

সর্বশেষ:

ইরানে যেতে লাগবে না ভিসা

ইরানে যেতে লাগবে না ভিসা, ভ্রমণের বড় সুযোগ

ইরানে যেতে লাগবে না ভিসা
Facebook
Twitter
LinkedIn

পর্যটন খাতের উন্নয়নে সম্প্রতি বিভিন্ন দেশের জন্য ভিসা-ফ্রি প্রবেশের সুবিধা চালু করেছে মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, শ্রীলঙ্কাসহ বেশ কিছু দেশ। এবার প্রায় একই ধরনের উদ্যোগ নিয়েছে পারস্য উপসাগর তীরের দেশ ইরান। ভিসা ছাড়াই এবার বিশ্বের ৩৩টি দেশের নাগরিকদের ভ্রমণের অনুমতি দিয়েছে ইরান। বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) ইরানিয়ান স্টুডেন্ট নিউজ এজেন্সির (ইসনা) বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ইরানে ভিসামুক্ত প্রবেশের সুবিধা পাওয়া ৩৩টি দেশের মধ্যে রয়েছে- সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন, কাতার, কুয়েত, ভারত, রাশিয়া, লেবানন, উজবেকিস্তান, কিরগিজস্তান, তিউনিসিয়া, মৌরিতানিয়া, জিম্বাবুয়ে, তানজানিয়া, জিম্বাবুয়ে, মরিশাস ও সেশেলস। এছাড়াও রয়েছে ইন্দোনেশিয়া, ব্রুনেই, জাপান, সিঙ্গাপুর, কম্বোডিয়া, মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম, ব্রাজিল, পেরু, কিউবা, মেক্সিকো, ভেনেজুয়েলা, বসনিয়া ও হার্জিগোভিনা, সার্বিয়া, ক্রোয়েশিয়া ও বেলারুশ।

বিশ্ববাসীর কাছে ইরানের ইতিবাচক ভাবমূর্তি তুলে ধরার জন্য নেয়া কর্মসূচির অংশ হিসেবে তেহরান এই উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানা গেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইরানের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য, পর্যটন ও হস্তশিল্প বিষয়ক মন্ত্রী ইজ্জাতোল্লাহ জারঘামি।

তিনি বলেছেন, ‘এই পদক্ষেপের মাধ্যমে আমরা বিশ্ববাসীকে বার্তা দিতে চাই যে, আন্তর্জাতিক পর্যটকদের স্বাগত জানানোর জন্য ইরান প্রস্তুত। আমরা মনে করি, বর্তমানে বিশ্বজুড়ে যেভাবে ইরানভীতি ছড়িয়ে পড়ছে, তা এই পদক্ষেপের মাধ্যমে প্রতিহত করা যাবে।’

ইজ্জাতোল্লাহ জারঘামির উদ্ধৃতি দিয়ে ইসনার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তার মন্ত্রণালয় ৬০টি দেশের নাগরিকদের ভিসামুক্ত প্রবেশাধিকার দেয়ার সুপারিশ করেছিল। কিন্তু সেগুলোর মধ্যে থেকে ৩৩টি দেশের জন্য এ অনুমতি দিয়েছে সরকার।

এই উদ্যোগ ইরানের পর্যটন খাতে এক নতুন দিগন্ত খুলে দেবে বলে মনে করা হচ্ছে। বিশেষ করে, মধ্যপ্রাচ্য ও এশিয়ার দেশগুলোর সাথে সংযোগ আরও মজবুত হবে। এছাড়া, ইরানের ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক সম্পদ বিশ্বের সামনে আরও প্রকাশ পাবে।

ইরানের এই পদক্ষেপ নিঃসন্দেহে বিশ্ব পর্যটন বাজারে এক নতুন মাত্রা যোগ করবে। এটি না শুধু ইরানের অর্থনীতিতে সহায়ক হবে, বরং বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক ও পারস্পরিক বোঝাপড়া বাড়াতেও সহায়ক হবে। ইরানের এই উদ্যোগ অন্যান্য দেশের জন্যও একটি উদাহরণ হতে পারে, যা বিশ্ব পর্যটনে নতুন মাত্রা যোগ করবে।

Facebook
Twitter
LinkedIn

সর্বশেষ খবর

abu sufian
dainikbd-ads
Arup Juarder Khulna Batiaghata